ডুমুরিয়ায় করোনা ভাইরাসের টিকা দিলেন খুলনা ৫ আসনের সাংসদ নারায়ণ চন্দ্র চন্দ।

শেখ মাহতাব হোসেন, ডুমুরিয়া খুলনাঃমঙ্গলবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টার সময় ডুমুরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সাবেক মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী খুলনা ৫ আসনের সংসদ সদস্য নারায়ণ চন্দ্র চন্দ টিকা দেওয়ার সময় উপস্থিত ছিলেন ডুমুরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান গাজী ‌এজাজ আহম্মেদ, উপজেলা বীর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ‌নূরুল ইসলাম মানিক,
ডুমুরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ইউ এস আই ডাক্তার সুফিয়ান রস্তোম, উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ দীন মোহাম্মদ,আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক শাহনেওয়াজ হোসেন জোয়ার্দার, চেয়ারম্যান হিমাংশু বিশ্বাস, উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মোঃ মোছাদ্দেক হোসেন,ডুমুরিয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি কাজী আব্দুল্লাহ,সহ সভাপতি শেখ মাহতাব হোসেন, করুন দেবনাথ, এস রফিকুল ইসলাম, সুব্রত ফোজদার,‌মাসুম বিল্লাহ।
করোনা ভাইরাসটির আরেক নাম ২০১৯-এনসিওভি। এটি এক ধরনের করোনা ভাইরাস। ভাইরাসটির অনেক রকম প্রজাতি আছে, কিন্তু এর মধ্যে মাত্র ৭টি মানুষের দেহে সংক্রমিত হতে পারে। বিজ্ঞানীরা বলছেন, ভাইরাসটি হয়তো মানুষের দেহকোষের ভেতরে ইতোমধ্যে ‘মিউটেট করছে’, অর্থাৎ গঠন পরিবর্তন করে নতুন রূপ নিচ্ছে এবং সংখ্যাবৃদ্ধি করছে। ফলে এটি আরও বেশি বিপজ্জনক হয়ে উঠতে পারে। সোমবারই বিশেষজ্ঞরা নিশ্চিত করেছেন, এ ভাইরাস একজন মানুষের দেহ থেকে আরেকজন মানুষের দেহে ছড়াতে পারে।
এই ভাইরাস মানুষের ফুসফুসে সংক্রমণ ঘটায় এবং শ্বাসতন্ত্রের মাধ্যমেই এটি একজনের দেহ থেকে আরেকজনের দেহে ছড়ায়। সাধারণ ফ্লু বা ঠান্ডা লাগার মতো করেই এ ভাইরাস ছড়ায় হাঁচি-কাশির মাধ্যমে। তবে এর পরিণামে অরগ্যান ফেইলিওর বা দেহের বিভিন্ন প্রত্যঙ্গ বিকল হয়ে যাওয়া, নিউমোনিয়া এবং মৃত্যু ঘটারও আশঙ্কা রয়েছে। এখন পর্যন্ত আক্রান্তদের দুই শতাংশ মারা গেছেন, হয়তো আরও মৃত্যু হতে পারে। তাছাড়া এমন মৃত্যুও হয়ে থাকতে পারে যা চিহ্নিত হয়নি। তাই এ ভাইরাস ঠিক কতটা ভয়ংকর হতে পারে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.