পাকিস্তানের বিপক্ষে দ্বীতিয় ম্যাচে ব্যার্থ টাইগাররা – Latest breaking news in bangla ৷ channel26

পাকিস্তানের বিপক্ষে দ্বীতিয় ম্যাচে ব্যার্থ টাইগাররা

admin
প্রকাশিত নভেম্বর ২০, ২০২১
পাকিস্তানের বিপক্ষে দ্বীতিয় ম্যাচে ব্যার্থ টাইগাররা

খেলাধূলা ডেস্ক : দীর্ঘ ৬১৭ দিন পর ঘরের মাঠে দর্শক ফিরিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। এ সুযোগ মাটিতে ফেলতে দেননি টাইগার সমর্থকরা। বিশ্বকাপে ভরাডুবির পরও পাকিস্তানের বিপক্ষে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ম্যাচ ‘হাউজ ফুল’ ছিল। ওই ম্যাচ ৪ উইকেটে হারে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল। দ্বিতীয় ম্যাচে আরও ব্যর্থ টাইগারদের ব্যাটিং লাইনআপ। পুঁজি মাত্র ১০৮ রানের। যা অনুমেয় সেটিই হলো শেষপর্যন্ত। পরাজয় ৮ উইকেটে। এতে ম্যাচ জয়ের সঙ্গে সিরিজ জয়টিও নিশ্চিত করে রাখল সফরকারীরা। তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম দুটিতে জিতে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল পাকিস্তান।

দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে টস জিতে আগে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ১০৮ রান গড়ে বাংলাদেশ। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৪০ রান করেন নাজমুল হোসেন শান্ত।
১০৯ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ১১ বল হাতে রেখে জয় তুলে নেয় পাকিস্তান। যদিও রান তাড়ায় শুরুতে ধাক্কা খেয়েছিল সফরকারীরা। এই ম্যাচেও টিকতে পারেননি পাকিস্তানের অধিনায়ক বাবর আজম। ইনিংসের তৃতীয় ওভারে মুস্তাফিজের করা অফ স্টাম্পের বাইরে বলে জায়গায় দাঁড়িয়ে ব্যাট চালান বাবর। কিন্তু ব্যাটের কানায় লেগে স্টাম্পে আঘাত করে বল। বাবর ফিরে যান ১ রান।

অবশ্য বাবর ফিরলেও জয় পেতে সমস্যা হয়নি পাকিস্তানের। মোহাম্মদ রিজওয়ান ও ফখর জামানের ব্যাটে সহজেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় পাকিস্তান। ৩৯ রান করেন রিজওয়ান। ৫৭ রান করেন ফখর জামান। শেষ দিকে হায়দার আলী করেন ৬ রান।

এর আগে ব্যাট করতে নেমে ম্যাচের প্রথম ওভারেই রানের খাতা না খুলে বিদায় নেন সাইফ হাসান। সাইফের পথই অনুসরণ করলেন আরেক ওপেনার নাঈম শেখ। পরের ওভারে মোহাম্মদ ওয়াসিমের শিকারে পরিণত হন তিনি। যাওয়ার আগে ৮ বল খেলে করেন ২ রান। দুই ওপেনার চলে গেলে জুটি গড়ায় ব্যস্ত হন আফিফ ও শান্ত। কিন্তু ২১ বলে ২০ রান তুলতেই শাদাব খানের ফাঁদে পা দিয়ে ক্যাচ আউট হয়ে ফিরেন সাঝঘরে।

খেলার এই পর্যায়ে শান্তর সঙ্গী হন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ। জুটি গড়তে গড়তে জুটি বেঁধেই আউট মাহমুদউল্লাহ- শান্ত। ১৫ বলে ১২ রান করে অধিনায়কের বিদায়ের পর ৩৪ বলে ৪০ করে ফিরেন শান্ত। এরপর নুরুল হাসান সোহানের ১১ রানের সংগ্রহের সাথে লোয়ার অর্ডারদের খুচরা রানে ৭ উইকেট হারিয়ে স্কোরবোর্ডে ১০৮ রান তুলে টাইগাররা।

পাকিস্তানের হয়ে শাহীন আফ্রিদি ও শাদাব খান ২টি করে এবং মোহাম্মদ ওয়াসিম, হারিস রউফ ও মোহাম্মদ নাওয়াজ ১টি করে উইকেট শিকার করেন।