সিদ্ধিরগঞ্জে জাল টাকা ও মাদক ব্যাবসা করে রিকশাওয়ালা থেকে কোটিপতি কে এই হানিফ ? দুদকের হস্তক্ষেপ কামনা – Latest breaking news in bangla ৷ channel26

সিদ্ধিরগঞ্জে জাল টাকা ও মাদক ব্যাবসা করে রিকশাওয়ালা থেকে কোটিপতি কে এই হানিফ ? দুদকের হস্তক্ষেপ কামনা

Jakir Hossain
প্রকাশিত জুন ৮, ২০২২
সিদ্ধিরগঞ্জে জাল টাকা ও মাদক ব্যাবসা করে রিকশাওয়ালা থেকে কোটিপতি কে এই হানিফ ? দুদকের হস্তক্ষেপ কামনা

 

জাকির হোসেন:

সিদ্ধিরগঞ্জের বাগানবাড়ী এলাকার রিকশাওয়ালা হানিফ জাল টাকা , জাল স্ট্যাম্প ও মাদক ব্যবসা করে শূন্য থেকে কোটিপতি বনে গেছে। এ যেন অল্প সময়ে আলাদিনের চেরাগ পেয়ে বর্তমানে কয়েক কোটি টাকার মালিক হয়েছে। সিদ্ধিরগঞ্জ আজিবপুর নাসিক ৪নং ওয়ার্ড বাগানবাড়ী এলাকা হাউজিং ও পাইনাদী এলাকায় রয়েছে নামে বেনামে একাধিক আলীশান বাড়ী । যার বর্তমান বাজার মূল্য কয়েক কোটি টাকা। তার নামে জাল টাকা ও জাল স্ট্যাম্প এর অবৈধ ব্যাবসা করার কারনে ৩০ লাখ টাকার জাল নোটসহ কিছুদিন পুর্বে পুলিশ হাতে গ্রেফতার হয়েছে যে মামলা বর্তমানে আদালতে বিচারাধীন। এলাকাবাসীর প্রশ্ন একজন রিকশা ওয়ালা থেকে কিভাবে এত অল্প সময়ে কোটি টাকার মালিক হয়েছে তাদের দাবি দুর্ণীতি দমন কমিশন ও প্রশাসন সঠিক তদন্ত করলে তার আসল কাহিনী বের হয়ে আসবে।

অনুসন্ধানে জানাগেছে, বিভিন্ন এলাকায় এই মাদক সরবরাহ করার জন্য মাদক ব্যবসায়ী হানিফ ওরফে রিকশাওয়ালা হানিফ ও জোসনা মহিলা-পুরুষসহ গড়ে তোলেছেন ৩০/৩৫ জনের একটি বাহিনী। যাদের কাজ হচ্ছে সিদ্ধিরগঞ্জসহ এর আশপাশের এলাকায় মাদক সরবরাহ করা। এই দুই মাদক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে সিদ্ধিরগঞ্জ থানাসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় মাদকও জাল টাকার একাধিক মামলা রয়েছে। এর মধ্যে ডিএমপির ডিবি পুলিশ ২০০৫ সালে মো. হানিফ ওরফে খলিফাকে শ্যামপুর থানার একটি মাদক মামলায় (মামলা নং-৫৩) গ্রেপ্তার করে।

পরবর্তীতে জামিনে বেরিয়ে এসে আবারও চলে তার রমরমা মাদক ব্যবসা। অন্যদিকে মাদক সম্রাজ্ঞী হিসেবে পরিচিত জোসনাকে ২০১৫ সালে বাগানবাড়ী এলাকা থেকে মাদক সহ গ্রেফতার করে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ। (যার মামলা নং-২৩)। মাদক ব্যবসায়ী হানিফ ওরফে খলিফা ঝালকাঠি জেলার রাজাপুর গ্রামের সুলতান খলিফার ছেলে। বর্তমানে পরিবার নিয়ে সিদ্ধিরগঞ্জের বাগানবাড়ী এলাকায় বসবাস করছেন অপরদিকে মাদক সম্রাজ্ঞী হিসেবে পরিচিত জোসনা বাগানবাড়ী এলাকার মো. শাহজাহানের স্ত্রী তার স্বামী ভারতের।
সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন যাবৎ সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে মাদক ব্যবসায়ী হানিফ মাদক নিয়ে এসে তা বিক্রির জন্য সিদ্ধিরগঞ্জের বাগানবাড়ী এলাকায় তার নিজস্ব বাড়িতে মজুদ রাখেন। আর এসব মাদক বিক্রির এজেন্ট হিসেবে কাজ করেন মাদক সম্রাজ্ঞী হিসেবে পরিচিত জোসনা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক স্থানীয় ব্যাক্তি বলেন, হানিফ ওরফে খলিফা ছিলেন একজন রিকশাওয়ালা। একজন রিকশাওয়ালা কি ভাবে পাচঁটি বাড়ির মালিক হয়? জোসনা ছিলেন একজন কাজের মহিলা। এলাকার বাসা বাড়িতে কাজ করে খেতেন। একজন কাজের মহিলা কি ভাবে তিনটা বাড়ির মালিক হয়? আমরা স্থানীয় প্রশাসনসহ দুদকের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। তিনি আরও বলেন, মাদক ব্যবসায়ী হানিফ ও জোসনা অবৈধ জাল টাকার ব্যবসা করে। এলাকাবাসী ও সাবেক সিদ্ধিরগঞ্জ পৌর সভার আলহাজ্ব আব্দুল মতিন প্রধানসহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিরা মাদক ব্যবসা ও বিভিন্ন অপকর্মের অপরাধে জোসনাকে এলাকা থেকে বের করে দেয়। পরবর্তীতে তিন বছর পর ফের এলাকায় এসে আবারও পূর্বের সেই মাদক ব্যবসা শুরু করে। মাদক ব্যসায় এলাকার কেউ বাধা দিলে বিভিন্ন ভাবে হুমকি দামকি দেয়। তাদের হাত থেকে যুব সমাজকে রক্ষা করতে আমরা স্থানীয় প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।